Reading Time: 5 minutes

ওপেন সোর্স ওয়েব ব্রাউজার অ্যাপের তালিকায় মজিলা ফায়ারফক্স সর্বসেরা ব্রাউজিং অ্যাপ হিসেবে পরিচিত। বিভিন্ন এবং প্রয়োজনীয় অ্যাড-অন সহ কিছু চমৎকার ফিচারের সমন্বয়ে তৈরি অ্যাপটি ব্যবহারকারীদের পছন্দের তালিকায়। অ্যাড ব্লকিং, পপ আপ রিমুভার, প্রাইভেসি ফ্রেন্ডলি, ট্র‍্যাকিং ফ্রি, পুরোনো ট্যাব সেভ রাখার পাশাপাশি গুরুত্বপূর্ণ সব অ্যাড-অনের সমন্বয়ে মজিলা ফায়ারফক্স ওয়েব ব্রাউজার অ্যাপ। মজিলা ফায়ারফক্স ছাড়াও আরো কিছু ব্রাউজিং অ্যাপ রয়েছে যা চমৎকার সব ফিচার দিয়ে পূর্ণ।

এর মধ্যে ফলগারিস (Fulguris) মোবাইল ব্রাউজার অন্যতম একটি সেরা ব্রাউজিং অ্যাপ। ওপেন-সোর্স এই ব্রাউজারে স্বাভাবিক দৈনন্দিন ফিচার ছাড়াও এতে আরো কিছু বিশেষ ফিচার ডেভেলপাররা এতে যোগ করেছেন, যা ব্যবহারকারীদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ এবং ফায়ারফক্সের মতই সেরা ব্রাউজিং অ্যাপের তালিকায় থাকবে। এই আর্টিকেলটিতে ফলগারিস অ্যাপ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করবো।

ফলগারিস একটি ওপেন সোর্স মোবাইল ব্রাউজার

বিনামূল্য এবং ওপেন সোর্স মোবাইল ব্রাউজার ফলগারিস। এটি ব্যবহারকারীদের জন্য প্রাইভেসি ফ্রেন্ডলি একটি অ্যাপ। সুতরাং গোপন তথ্য সংগ্রহ কিংবা ট্র‍্যাকিং এর ঝামেলা এতে নেই। ওপেন সোর্স অ্যাপ হওয়ায় এর সোর্সকোডগুলো ব্যবহারকারীরা যাচাই করে দেখা এবং ডাউনলোড করার সুবিধা পাচ্ছেন। সেই সাথে কোডগুলি ব্যবহারের মাধ্যমে নিজেরা অ্যাপটি বিল্ড করে নিতে পারবেন। 

প্রাইভেসির প্রয়োজনীয়তা

যেকোন অ্যাপ ব্যবহার করার ক্ষেত্রে ব্যবহারকারীদের সবার আগে যেই বিষয়টি মাথায় রাখতে হয়, সেটি হচ্ছে প্রাইভেসি। ব্যবহারকারী যে অ্যাপটি ব্যবহার করছেন সেটি প্রাইভেসি ফ্রেন্ডলি কি না সেটি জানা সবার আগে জরুরি। এমন অনেক ওয়েব ব্রাউজার রয়েছে যেটি ব্যবহারকারীদের ট্র‍্যাকিং এর মাধ্যমে তার সকল প্রকার তথ্য এবং গোপনীয়তা ব্রাউজারে জমা রাখে এবং পরবর্তীতে ব্যবহারকারীর সেই তথ্যগুলো তৃতীয় পক্ষের কোন কোম্পানির কাছে ব্যবহারকারীর বিক্রি করে।

আর ট্র‍্যাকিং এর মাধ্যমে ব্যবহারকারীর পছন্দ সংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহ বারবার বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করা হয়। গুরুত্বপূর্ণ কাজ পরিচালনার সময়ে বিজ্ঞাপনগুলো প্রতিনিয়ত স্ক্রিনে ভাসতে থাকে, যা অত্যন্ত বিরক্তিকর। এছাড়াও ব্যাবহারকারীর অনুমতি ছাড়াই থার্ড পার্টিদের প্রাইভেট ডাটা ব্যবহারের সুযোগ করে দেয় ব্রাউজারগুলো। এ সমস্ত সমস্যাগুলির ব্যাপারে ফলগারিস ওয়েব ব্রাউজার সম্পূর্ণ বিপরীত। ফলগারিস ব্যবহারকারীদের জন্য একটি প্রাইভেসি ফ্রেন্ডলি অ্যাপ।

এটি ব্যবহারে কোন রকম ঝুকি নেই, নেই এতে ডেটা ট্র‍্যাকিং এর ঝামেলা। থার্ড পার্টি অ্যাপগুলির ব্যবহারের ক্ষেত্রেও এটি সরাসরি ব্যবহারকারীদের ব্যবহারের কোন সুযোগ দিচ্ছে না। অর্থাৎ ব্যবহারকারীর অনুমতি ছাড়া থার্ড পার্টি অ্যাপ ব্যবহার করতে দিবে না উক্ত ওয়েব ব্রাউজিং অ্যাপটি। সাথে রয়েছে অ্যাড ব্লকিং এর ও সুবিধা।

ক্রোম ব্রাউজার এর প্রাইভেসি সমস্যাগুলি

ব্যবহারকারীর গোপনীয়তার সাথে মোটেও বন্ধুসুলভ নয় এমন অ্যাপের মধ্যে ক্রোম ব্রাউজার একটি। ক্রোম ছাড়াও গুগল সম্পর্কিত সকল প্লাটফর্ম ব্যবহারকারীর গোপনীয়তা ভঙ্গের আওতায়। অনুমতি ছাড়াই ব্যবহারকারীর সকল তথ্যসহ, তার ব্যবহৃত ডিভাইসের সকল তথ্য ক্রোম ব্রাউজার জমা রাখে। আর ট্র‍্যাকিং এর মাধ্যমে ব্যবহারকারীর পছন্দসমূহ অনিচ্ছা থাকা সত্ত্বেও প্রতিবার বিজ্ঞাপন এর মাধ্যমে সাজেস্ট করা হয়, যার ফলে ব্যবহারকারী গুরুত্বপূর্ণ কাজে ঠিকমত মনোনিবেশ করতে পারেন না।

আরেকটি বাজে ব্যাপার ক্রোম ব্রাউজারে কোন অ্যাড-ব্লক ফিচার নেই। সুতরাং ব্যবহারকারী চাইলেও বিজ্ঞাপন এড়াতে পারবেন না ক্রোম ব্রাউজার ব্যবহারের ক্ষেত্রে। তবে ফলগারিস ওয়েব ব্রাউজার প্রাইভেসি ফ্রেন্ডলি সহ একটি বিজ্ঞাপন মুক্ত ওয়েব ব্রাউজার হওয়ায় এসকল ঝামেলার সুযোগ নেই। এতে অ্যাড-ব্লক ফিচার রয়েছে, যাতে ব্যবহারকারী গুরুত্বপূর্ণ কাজ করার ক্ষেত্রে কিংবা আর্টিকেল পড়ার ক্ষেত্রে মনোযোগের ব্যাঘাত না ঘটে। এছাড়াও এতে রয়েছে রিডার মোড।

রিডার মোড চালু করার ফলে অপ্রয়োজনীয় ছবি, বিজ্ঞাপন বা পপ-আপ সরে গিয়ে স্ক্রিনে কেবল টেক্সট আকারে লেখাগুলো চলে আসবে।

ফলগারিস ব্রাউজারের ফিচারসমূহ

ফলগারিস ওয়েব ব্রাউজার অ্যাপের ফিচারগুলো খুবই চমৎকার এবং পছন্দ হবার মত। ফলগারিস অ্যাপটি ওপেন করলেই শুরুতে দেখা যাবে কিছু সাইটের লিংক। ব্যবহারকারী নতুন ট্যাব ওপেন করে সেখান হতে সাইটগুলো নির্বাচন করে তাতে প্রবেশ করতে পারবেন। চাইলে ট্যাবগুলো স্লাইডের মাধ্যমে ডিলেট করে ফেলতে পারবেন। আবার ডিলেট হওয়া ট্যাব পুনরায় ফিরিয়ে আনার ফিচার ও রয়েছে এতে। এর আরেকটি চমৎকার ফিচার হলো ট্যাব সেশন।

ট্যাব সেশনের মাধ্যমে ব্যবহারকারী তার ট্যাবগুলো তার নিজের পছন্দমত গ্রুপ করে নিতে পারবেন এবং ট্যাবগুলি সেভ রাখতে পারবেন। ব্যবহারকারী প্রাইভেটলি কোন কিছু ব্রাউজিং করতে চাইলে রয়েছে “Go Incognito” মোড। ব্যবহারকারীগণ ট্র‍্যাকিং এর ঝামেলা থেকে নিরাপদ থাকতে চাইলে Go Incognito মোডে ব্রাউজিং করতে পারেন। এতে তার গোপনীয়তা রক্ষা সহজ হবে। এছাড়াও এই ফিচারটি ব্যবহার করলে তার ব্যক্তিগত কোন তথ্য সেখানে সেভ থাকবে না।

ফলগারিস ব্রাউজার এর প্রাইভেসি সেটিংস

ফলগারিস অ্যাপের সেটিংস এর জেনারেল অপশনে রয়েছে কাস্টম সার্চ ইঞ্জিন। সেটিংসটির মাধ্যেম ব্যবহারকারী তার প্রয়োজনমত তার সার্চ ইঞ্জিন সেট করে নিতে পারবেন। সাথে রয়েছে কুকিস এনাবল করার সুবিধা, এই ফিচারটি এনাবল করে ব্যবহারকারী তার কুকিস সেভ হওয়া থেকে বিরত থাকতে পারবেন। এছাড়াও রয়েছে জাভাস্ক্রিপ্ট ব্লকিং ফিচার। কাস্টমাইজেশনের কনফিগারেশন অপশনে রয়েছে পোট্রেট অথবা ল্যান্ডস্কেপ মোড, এটি পছন্দমত সেট করে নিতে পারেন।

এছাড়াও রয়েছে কালার, টেক্সট সাইজিং এবং অন্যান্য সুবিধা। টেক্সট সাইজিং অপশনের মাধ্যমে ব্যবহারকারীর পড়তে সুবিধা হয় এমনভাবে টেক্সটের আকার সেট করে নিতে পারবেন। সেটিংসের কনটেন্ট কন্ট্রোলে পাচ্ছেন ঝামেলাজনক অ্যাড ব্লক করার সুবিধা, সেই সাথে অপ্রয়োজনীয় কনটেন্ট ও ব্লক করতে পারবেন। ম্যালওয়ার, স্প্যামিং থেকে রক্ষা পেতে এই ফিচারটি ডিভাইসকে সুরক্ষা দিচ্ছে। যে সমস্ত সাইটগুলো বিজ্ঞাপন সাজেস্ট করে সেসমস্ত অ্যাপগুলোর ফিল্টারে অ্যাড করে বিজ্ঞাপন বা অপ্রয়োজনীয় পপ-আপ এর ঝামেলা থেকে মুক্ত থাকা যায়।

চাইলে ব্যবহারকারী নিজস্ব কাস্টম ফিল্টার লিস্ট ইম্পোর্ট করতে পারবেন। সেটিংসের প্রাইভেসি অপশনে রয়েছে Permanently behave as if incognito mode. যার মাধ্যমে পার্মানেন্টলি ইনকগ্নিটো মোডে বিভিন্ন সাইটে ব্রাউজিং করা যাবে। WebRTC support অপশন ডিজাবল করার মাধ্যমে অনাকাঙ্ক্ষিত আইপি লিক হওয়া বন্ধ করতে পারবেন। এর মাধ্যমে ব্যবহারকারীর অনাকাঙ্ক্ষিত মাইক্রোফোন, কল ইত্যাদি অ্যাক্সেস অন হবার ঝামেলা নেই।

রয়েছে লোকেশন অ্যাক্সেস ডিজাবল করার সুবিধা এবং সাথে রয়েছে থার্ড পার্টি কুকিস ডিজাবল এবং ট্র‍্যাকিং বন্ধের ফিচার। প্রাইভেসির জেনারেল ফিচারগুলোতে রয়েছে clear cache, cookies, history এবং web storage on exit অপশনগুলো। যেটি চালু করার মাধ্যমে ব্যবহারকারী ব্রাউজার থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সাথে সাথে তার সমস্ত সব তথ্য এবং কুকিস মুছে যাবে অটোমেটিক্যালি। চাইলে ম্যানুয়ালিও সমস্ত তথ্য মুছে ফেলতে পারবেন।

সেটিংসের ব্যাক আপ অপশনে রয়েছে বুকমার্ক ইম্পোর্ট কিংবা এক্সপোর্টের সুবিধা। এছাড়াও গ্রুপ করা ট্যাবগুলোও ইম্পোর্ট কিংবা এক্সপোর্ট করতে পারবেন। 

ট্যাবলেট বান্ধব এবং ডেস্কটপ মোড

ফলগারিস অ্যাপের আরেকটি চমৎকার ফিচার সম্পর্কে জানাবো যেটি আমার বিশেষভাবে ভাল লেগেছে, ব্যবহারকারীদের ক্ষেত্রেও এটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হিসেবে বিবেচিত হতে পারে। সেটি হচ্ছে এটির ট্যাবলেট বা ডেস্কটপ মোড। অনেকগুলো অ্যাপ রয়েছে যেটি ট্যাব এর জন্য বিশেষভাবে অপটিমাইজ করা নয়, তবে ফলগারিস ওয়েব ব্রাউজারে তা রয়েছে। যারা ট্যাবলেট ব্যবহার করেন তাদের জন্য এই ফিচারটি সুবিধাজনক মনে হতে পারে। ট্যাবলেটে ডেস্কটপ মোড অন করার ফলে ফুল ট্যাবলেটের ইউআই দেখতেও বেশ লাগে।

এছাড়াও ফুল স্ক্রিনে কাস্টমাইজ করা বিভিন্ন ফিচার দেখতেও সুবিধা হয়। 

ফলগারিস যেখানে পাওয়া যাবে

ফলগারিস মূলত গুগল প্লে-স্টোরেই পাওয়া যাচ্ছে। তবে F-Droid থেকে ফলগারিস অ্যাপ ইন্সটল করা সবচেয়ে বেশি নিরাপদ। F-Droid ওপেন সোর্স অ্যাপ গ্যালারী হওয়ায় ফলগারিস সহ সেখানে বিভিন্ন ওপেন সোর্স অ্যাপ ইন্সটল করার সুবিধা পাওয়া যাচ্ছে। https://f-droid.org এ গিয়ে সরাসরি সেখান থেকে ডাউনলোড করা যাবে অথবা ফলগারিসের নিজস্ব অফিসিয়াল ওয়েব সাইট রিপোজিটরি থেকে ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

সাবস্ক্রাইব করুন The Penguins Club খবরপত্রিকায়

প্রতি শুক্রবার বিশেষ খবর এবং আলোচনায় অংশগ্রহন করতে আপনার ইমেইল দিন।


Tagged:
About the Author

বিগত প্রযুক্তি বিষয়ক লেখালেখি করছি - বাংলা লেখিকা

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.